Wednesday, May 18, 2016

বিদ্রোহী বাংলা-গোয়া, দ্বন্দ্ব ফেডারেশনেই । এই সময়

আই লিগ এবং আইএসএল এক করে দেওয়ার পদ্ধতি নিয়ে ফেডারেশনে দ্বন্দ্ব আরও প্রকাশ্যে এল৷ পাশাপাশি বাংলা এবং গোয়ার বড় ক্লাবগুলো নিজেদের মধ্যে আলোচনা শুরু করল তাদের ব্রাত্য করে দেওয়ার প্রতিবাদে৷ বুধবারই গোয়ায় আলোচনায় বসছেন স্পোর্টিং ক্লুব দ্য গোয়া ও সালগাওকর কর্তারা৷
ইস্টবেঙ্গল কর্তা দেবব্রত সরকার বলে দিলেন, 'আমরা সবাই মিলে প্রতিবাদ করতে চাই৷ আমাদের প্রস্তাব ছিল, আই লিগের সব ক্লাবকে আইএসএলে খেলতে দেওয়ার জন্য অন্তত প্রস্তাব দিতে হবে৷ দুটো ক্লাবকে আলাদা করে নেওয়া যাবে না৷' ইস্টবেঙ্গল কর্তার কথায় মোহনবাগান সচিব অঞ্জন মিত্রেরই সুর৷ প্রয়োজনে তাঁরা আদালতের দ্বারস্থ হবেন৷ বাংলা ও গোয়ায় আইএসএলের খেলা হতে দেবেন না৷ এরই মধ্যে নয়া লিগের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেও সংযুক্তিকরণের পদ্ধতির প্রতিবাদ করে ফেডারেশন সচিব কুশল দাসকে চিঠি দিলেন ফেডারেশনেরই ভাইস প্রেসিডেন্ট সুব্রত দত্ত৷ যেখানে তিনি স্পষ্টই বলে দিয়েছেন, দুটো লিগ মিলে যাওয়া নিয়ে তাঁর কোনও আপত্তি নেই৷ কিন্ত্ত যে পদ্ধতিতে এটা করার চেষ্টা করা হচ্ছে, তা নিয়ে যথেষ্ট আপত্তি রয়েছে৷

আইপিএল করার ক্ষেত্রে যেমন ক্রিকেট বোর্ডেরই প্রত্যক্ষ ভূমিকা থাকে, আইএসএলে কিন্ত্ত এআইএফএফ কর্তারা স্রেফ দর্শক৷ রিয়াল্যান্সের এফএসডিএলই সব৷ এই প্রসঙ্গ প্রকারান্তরে টেনে এনে ফেডারেশন ভাইস প্রেসিডেন্ট নিজে সচিবকে লিখেছেন, 'নতুন লিগ কিন্ত্ত এআইএফএফ এবং এফএসডিএলকে একসঙ্গে করতে হবে৷ কেননা এই লিগ থেকেই জাতীয় টিমের প্লেয়ার বাছা হবে৷ এখান থেকেই এএফসি টুর্নামেন্টের টিম বাছা হবে৷ তা ছাড়া আগে দেখতে হবে, এই লিগকে এএফসি এবং ফিফা অনুমোদন দেয় কিনা৷'এই চিঠির সঙ্গে আই লিগ এবং আইএসএল মিলিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া নিয়ে নিজের কিছু ভাবনাও ফেডারেশনে পাঠিয়েছেন সুব্রত৷ যেখানে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল নিয়ে নিজের মতামত স্পষ্ট করে দিয়েছেন ফেডারেশন ভাইস প্রেসিডেন্ট৷ মোহন-ইস্টের মধ্যে কোনও একটা টিমকে আতলেতিকো কলকাতার সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার যে ভাবনা ফেডারেশন ভেবেছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, 'আতলেতিকোর সঙ্গে যদি মোহনবাগান বা ইস্টবেঙ্গলের যে কোনও নাম জুড়ে দিই, তা হলে কি তারা নাম বদলের ব্যাপারে সমঝোতা করবে? এক্ষেত্রে তো নাম বদল করতেই হবে৷'দ্বিতীয় প্রশ্ন, যদি তা না হয়, তা হলে কলকাতা থেকে তিনটে টিম নতুন লিগে খেলবে৷ সেক্ষেত্রে, আতলেতিকো কলকাতা কতটা সমর্থন পাবে? তৃতীয়ত, আই লিগের ক্লাবরা কী ভাবে এত টাকা দিতে পারবে? যেখানে আই লিগ খেলা যে কোনও টিমের বাজেট কখনই ১৫ কোটি ছাড়ায় না, সেখানে আইএসএলের টিমের বাজেট হয় ৪০ কোটি টাকার মতো৷

সব মিলিয়ে প্রশ্ন, আইএসএলে ফেডারেশনের ক্ষমতাহীন থাকা নিয়ে৷ নয়া লিগ নিয়ে ফিফা এবং এএফসির সম্ভাব্য মনোভাব প্রসঙ্গে৷ আরও প্রশ্ন, এএফসির নিয়মে কোনও ক্লাবে চার বিদেশির বেশি খেলা যায় না যখন ,তখন নয়া লিগে কী হবে?

No comments:

Post a Comment