Wednesday, May 25, 2016

ক্লাব তাঁবুতে ভারতসেরাদের অভিনব সংবর্ধনা | সংবাদ প্রতিদিন

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শহরের বুকে বছরখানেক আগের ছবিটা এখনও ফ্যাকাসে হয়ে যায়নি৷ বেঙ্গালুরু থেকে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফেরার দিন সবুজ আবিরে শহর ঢেকেছিল৷ বুধবার সেই ছবিরই পুনরাবৃত্তি ঘটল৷ ‘ভারতসেরা’দের অভিনন্দন জানাতে বিমানবন্দরে হাজার হাজার সমর্থক ভিড় জমিয়েছিলেন৷ বিক্রমজিৎ, গ্লেনরা বেরিয়ে আসতেই ‘মোহনবাগান জিন্দাবাদ’ স্লোগানে গলা ফাটালেন তাঁরা৷
এএফসি কাপ থেকে ছিটকে গেলেও ফেড কাপ জয়ের সেলিব্রেশনে এতটুকু ভাটা পড়েনি৷ টিম বাসের দু’পাশে সারি সারি মোটরবাইকের সমর্থকরা যেন ‘গার্ড অফ অনার’ দিয়ে গোটা দলকে নিয়ে এল বাগান তাঁবু পর্যন্ত৷

সেখানে নায়কদের দেখার জন্য শয়ে শয়ে ভক্ত অপেক্ষা করছিলেন৷ ১৩ বছর পর আই লিগ এসেছিল৷ এবার আট বছর পর ফেডকাপ৷ স্বাভাবিকভাবেই আনন্দের মাত্রা লাগাম ছাড়িয়েছে৷ ফুল দিয়ে সাজানো গেট৷ ক্লাব লনের মঞ্চে জ্বলজ্বল করছে ‘আবার ভারতসেরা মোহনাবাগান৷’ এই নিয়ে ১৪ বার ফেড কাপ ঘরে তুলেছে গঙ্গাপারের ক্লাব৷ তাই সংবর্ধনা মঞ্চে এবারের চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্যরা তো ছিলেনই, ছিলেন আগের ১৩ বারের ভারতসেরা দলের অধিনায়কও৷ তবে উপস্থিত থাকতে পারেননি বাইচুং ভুটিয়া ও হোসে ব্যারেটো৷ একই মঞ্চে ফুলের মালা পরিয়ে সংবর্ধিত করা হল প্রাক্তন ও বর্তমানদের৷ তবে জাতীয় শিবিরে যোগ দেওয়ার জন্য গুয়াহাটিতেই থেকে যেতে হয়েছে জেজেকে৷ হাইতি ফিরে যাওয়ায় ক্লাবের গ্র্যান্ড সেলিব্রেশনে সামিল হতে পারলেন না দলের সেরা স্ট্রাইকার সোনি নর্ডি৷ কাটসুমি যখন ট্রফি হাতে তুলেছেন, তখন ভক্তদের আনন্দ বাঁধ ভেঙেছে৷ ক্লাব কর্তা থেকে কোচ সঞ্জয় সেন, সবার মুখে স্বস্তি ও গর্বের হাসি৷
এদিন ফের ক্লাবের সহ-সচিব সৃঞ্জয় বোস বলে দিলেন, সঞ্জয় সেন ছিলেন, থাকবেন৷ সঞ্জয় সেন অবশ্য আগামী মরশুম নিয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু বললেন না৷ শুধু জানিয়ে দিলেন, ১৫ দিনের মধ্যে ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে কথাবার্তা বলে সিদ্ধান্ত নেবেন৷ খুশির পরিবেশের মধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হল ৭ জুনের মধ্যেই ফুটবলারদের বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়া হবে৷ আই লিগ হাতছাড়া হলেও ভারতসেরা হয়ে মরশুম শেষ করেছে ক্লাব৷ টানা ম্যাচ আর প্র্যাক্টিস থেকে সাময়িক ছুটি৷ তারপর ফের ভক্তদের স্বপ্নপূরণের প্রস্তুতি শুরু৷

No comments:

Post a Comment