Tuesday, April 26, 2016

দলের ‘‌রোগ’ ধরে ফেললেন মর্গান


দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা ভাল হয়নি। লাজং ম্যাচ হারের পর থেকে তঁার চিন্তার শেষ নেই। ভুল কোথায় হচ্ছে?‌ দলের অভাব কী?‌ অবশেষে উপলব্ধি করতে পেরেছেন ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গান। তঁার মতে, দলের গোল করার লোকের অভাব। সুতরাং দলের ‘‌রোগটা’‌ ধরতে বেশি সময় নিলেন না সাহেব কোচ।
আগের কোচ বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য ‘‌স্ট্রাইকারের অভাব’ প্রসঙ্গে সমালোচিত হয়েছেন। চতুর্থ বিদেশি হিসেবে স্ট্রাইকারের বদলে ডিফেন্ডার মেন্ডিকে নেওয়া নিয়েও বারবার প্রশ্ন উঠেছে। মঙ্গলবার সকালে হাওড়া স্টেডিয়ামে অনুশীলনের পর কোনও রাখঢাক না করেই মর্গান বলে দেন, ‘‌রন্টি ১২ গোল করে নিজের কাজটা করেছে। ওর দিকে কোনও ভাবেই আঙুল তোলা যাবে না। একজন স্ট্রাইকারের কাজই তো গোল করা, সেটা রন্টি করেছে। ওকে সাপোর্ট করার জন্য আরও একজনের দরকার ছিল।’‌ মোদ্দা কথা, দলে স্ট্রাইকারের অভাব। কিন্তু, গোটা আই লিগটা মাঠের ধারে বসেই কাটিয়ে দিলেন স্ট্রাইকার সাবিথ‌। ফেডারেশন কাপের আগে ফরোয়ার্ডে সাবিথ–রন্টি কম্বিনেশন ঝালিয়ে নিতে চায় লাল–হলুদ টিম ম্যানেজমেন্ট।
ফেডারেশন কাপে শিলঙের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচ দিয়ে অভিযান শুরু করবে ইস্টবেঙ্গল। এই লাজংয়ের কাছে আই লিগের শেষ ম্যাচে হেরেছেন মেহতাবরা। সেই দলের বিরুদ্ধে ফের অ্যাওয়ে ম্যাচ। তবে এটাকে ‘‌অ্যাডভান্টেজ’‌ হিসেবে দেখছেন মর্গান। তাঁর কথায়, ‘‌লাজং দল সম্বন্ধে ধারণা তৈরি হয়েছে আমাদের। ওখানকার পরিবেশ পরিস্থিতি জানা হয়ে গেছে। তাছাড়া ফেড কাপ আলাদা টুর্নামেন্ট। কোনও অসুবিধে হবে না।’‌
মঙ্গলবার হাওড়া স্টেডিয়ামে লাজং ম্যাচ খেলা ফুটবলারদের রিকোভারি সেশন চলল। বাকিদের নিয়ে টানা দেড় ঘণ্টার অনুশীলন হয়। আই লিগের শেষ ম্যাচে হারের জন্য দলগত ব্যর্থতাকেই দায়ী করলেন লাল–হলুদ কোচ। সব ভুলে ফেডারেশন কাপের আগে দ্রুত ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া ইস্টবেঙ্গল।‌‌‌

No comments:

Post a Comment