Thursday, April 21, 2016

শনিবারের ম্যাচের জন্য ছ’হাজার টিকিট বিক্রি করতে পারবে মোহন বাগান

সংবাদদাতা, শিলিগুড়ি: একপ্রকার বাধ্য হয়ে মোহনবাগান বনাম বেঙ্গালুরু এফসি ম্যাচটি শিলিগুড়ির কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামে আয়োজন করে বড় ক্ষতির মুখে আয়োজক মোহনবাগান। বুধবার শিলিগুড়ি মহকুমা ক্রীড়া পরিষদের (এসএমকেপি) কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে মোহনবাগানের মিডিয়া ম্যানেজার ইমরান খান একথা জানান।
পাশাপাশি আই লিগের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানও ২৩ এপ্রিল খেলার দিনই কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামে হবে। ২ এপ্রিল ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান ডার্বি ম্যাচের পরপরই এসএমকেপি স্টেডিয়াম সংস্কারে হাত দিয়েছে। ফলে স্টেডিয়ামের অর্ধেক গ্যালারি দর্শকদের জন্য খুলে দেওয়া যাবে না। ফলে একপ্রকার ক্ষতি স্বীকার করেই মোহনাবাগানকে সম্মান রক্ষার ম্যাচটি আয়োজন করতে হচ্ছে। অর্ধেক গ্যালারির টিকিট বিক্রি করে খেলার খরচই উঠবে না বলে মোহনবাগান সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে এসএমকেপি ও শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেট প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। উল্লেখ্য, ম্যাচটি বারাসাত স্টেডিয়ামে আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু ২৫ এপ্রিল সেখানে ভোট থাকায় ম্যাচটি শিলিগুড়িতে সরিয়ে আনা হয়েছে। 
এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মোহন বাগানের মিডিয়া ম্যানেজার বলেন, বাধ্য হয়েই এই খেলাটি আমাদের শিলিগুড়িতে করাতে হচ্ছে। বারাসাতে আয়োজনের পুরো ব্যবস্থা করা হয়ে গিয়েছিল। সেখানে খেলাটি হলে ক্ষতি হত না। কারণ সেই স্টেডিয়ামে টিকিটের সংখ্যাও বেশি ছিল। স্বাভাবিকভাবেই দর্শকসংখ্যাও বেশি হওয়ার উজ্জ্বল সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু এখানে তো খেলোয়াড়দের যাতায়াতের ভাড়াও উঠবে না। মহকুমা ক্রীড়া পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অরূপরতন ঘোষ বলেন, আমরা আমাদের অসুবিধার কথা আগেই মোহনবাগান কর্তাদের জানিয়েছিলাম। তাঁদের ক্ষতির পাশাপাশি আমাদেরও অসুবিধা হবে। কিন্তু আমরাও খেলা পরিচালনা করতে প্রস্তুত আছি। মোহনবাগান না খেললে পয়েন্ট হারাবে। জিতলে অন্তত দ্বিতীয় স্থান অধিকার করার পাশাপাশি আগামী বছর এ এফ সি কাপে সরাসরি ছাড়পত্র পাওয়ার সুযোগ থাকছে। সেই অর্থে ক্ষতি হলেও ম্যাচটির গুরুত্ব রয়েছে। 

মোহনবাগান জানিয়েছে, বারাসাত স্টেডিয়ামে ম্যাচটি আয়োজন করা গেলে খরচের টাকা উঠে যেত। কিন্তু শিলিগুড়িতে আয়োজন করায় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে। কারণ, ভিআইপি, ৪০০, ২০০, ১০০ টাকার টিকিট মিলিয়ে ৬০০০ টিকিট বিক্রি করা হবে। শিলিগুড়ি মূলত ইস্টবেঙ্গল প্রেমী হওয়ায় এই ম্যাচটিতে পুরো টিকিট বিক্রি হবে কি না তা নিয়ে আশঙ্কা রয়েছে। যদিও মোহনবাগান কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, সমস্ত টিকিট বিক্রি না হলে ফুটবল প্রশিক্ষণ শিবিরগুলিতে সেই টিকিট অর্ধেক দামে বিক্রি করা যেতে পারে। এসএমকেপি জানিয়েছে, ম্যাচটির গুরুত্ব কিছুটা কম হলেও মোহনবাগানের সেরা একাদশই খেলবে। নিরাপত্তার জন্য ৫০ জন স্বেচ্ছাসেবক এবং ১০০ জন পুলিশ কর্মী মোতায়েন করা হবে। শুধুমাত্র স্টেডিয়ামের ফোসিন গেট এবং ১, ২, ৬ এবং ১২ নম্বর গেট খোলা হবে। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে টিকিট পাওয়া যাবে। ২২ তারিখ দুপুরে দু’দলই শিলিগুড়ি পৌঁছাবে। অনুশীলনের জন্য রানিডাঙা এসএসবি ময়দান ঠিক করা হয়েছে। ম্যাচের দিনই আই লিগের পুরস্কার বিতরণ করা হবে। বেঙ্গালুরু এফসি আগেই আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে গিয়েছে। সেদিন ফেডারেশনের কর্তারাও উপস্থিত থাকবেন।
Source - Bartaman

No comments:

Post a Comment